পৃথিবী কখন সৃষ্টি হয়েছে - তথ্য দেখে চমকে যাবেন আপনি।

পৃথিবী কখন সৃষ্টি হয়েছে - তথ্য দেখে চমকে যাবেন আপনি।

মানব সৃষ্টির সাথেই ঈশ্বর চারজন ঋষি কে বেদের জ্ঞান দিয়েছিল, আর তখন থেকে সংবৎ চলে আসছে। আর্যরা  সংসার এর সবথেকে আদি বংশের লোক , আর আজও বেদ তথা সেই সংস্কৃতি সভ্যতার বাহক এই জন্য আর্যরা সৃষ্টি সংবৎ কে বেদ সংবৎ তথা আর্য সংবৎ নামেই ডাকে।

পৃথিবী কখন সৃষ্টি হয়েছে
পৃথিবী কখন সৃষ্টি হয়েছে


বিক্রম সংবৎ ২০৭8 চৈত্র মাসের শুক্ল পক্ষ প্রতিপদ তিথি (২৮ মার্চ ২০১৭) হিসেবে সৃষ্টির বয়স হয়েছে ১,৯৬,০৮,৫৩,১১৮ বছর। চলুন গণনা দেখে নিই...

এই সময় সাত বৈবস্বত মন্বন্তর এর আঠাশতম চতুর্যুগী এর কলিযুগ চলছে। এখন এই কলিযুগ এর ৫১১৮ বছর পার হয়ে গেছে। মনে রাখুন, পুরো সৃষ্টি চলে ১৪ মন্বন্তর এর।

অতএব...

১ চতুর্যুগী = সত্যযুগ( ১৭,২৮,০০০)+ ত্রেতাযুগ ( ১২,৯৬,০০০)+ দ্বাপরযুগ(৮,৬৪,০০০) + কলিযুগ(৪,৩২,০০০) = ৪৩,২০,০০০ বছর

১  মন্বন্তর = ৭১ চতুর্যুগী = ৩০,৬৭,২০,০০০ বছর

৬ মন্বন্তর পার হয়ে গেছে, তাহলে ৬ মন্বন্তর = ১,৮৪,০৩,২০,০০০ বছর

৭ মন্বন্তর এর ২৭ চতুর্যুগী পার হয়ে গেছে, অর্থাৎ 
৪৩,২০,০০০×২৭ = ১১,৬৬,৪০,০০০ বছর

২৮ চতুর্যুগী এর পার হওয়া সময় অর্থাৎ সত্যযুগ + ত্রেতাযুগ + দ্বাপরযুগ + কলিযুগ = ১৭,২৮,০০০ + ১২,৯৬,০০০ + ৮,৬৪,০০০ + ৫১১৮ = ৩৮,৯৩,১১৮ বছর

সৃষ্টি সংবতঃ-

৬ মন্বন্তর = ১,৮৪,০৩,২০,০০০ বছর

২৭ চতুর্যুগী = ১১,৬৬,৪০,০০০ বছর

সত্যযুগ + ত্রেতাযুগ + দ্বাপরযুগ + কলিযুগ এর পার হওয়া সময় ৩৮,৯৩,১১৮

অতএব বর্তমান সৃষ্টি সংবৎ   
(১,৮৪,০৩,২০,০০০+১১,৬৬,৪০,০০০+৩৮,৯৩,১১৮) = ১,৯৬,০৮,৫৩,১১৮ বছর ।

সৃষ্টি তৈরি করতে পরমপিতা পরমেশ্বর সময় নেয়।

পুরো ১৪ মন্বন্তর নিয়ে এই সৃষ্টি ।
Total চতুর্যুগী ১০০০ 
১৪ মন্বন্তর = ১৪×৭১ = ৯৯৪ চতুর্যুগী
বাকি ৬ টি চতুর্যুগী সময় নেয় পরমপিতা পরমেশ্বর সৃষ্টি তৈরি করতে।

মানব সৃষ্টি কতদিন চলবে।

১৪ মন্বন্তর এর পুরো সৃষ্টি হয়, এর পরে প্রলয় হয়ে ধ্বংস হয়। উপরোক্ত গণনা অনুসারে মানুষ এর সৃষ্টি ও বেদের বয়স ১,৯৬,০্‌৫৩,১১৮ হয়ে গেছে। এখনো পৃথিবী ২,৩৩,৩২,২৬,৮৮২ বছর চলবে, এর পরে প্রলয় হবে। নিচে গণনা দেখে নিন...

১ মন্বন্তর = ৩০,৬৭,২০,০০০ বছর
১৪ মন্বন্তর = ৪,২৯,৪০,৮০,০০০ বছর
মানব সৃষ্টির পার হওয়া সময় = ১,৯৬,০৮,৫৩,১১৮ বছর



এখন মানব সৃষ্টি চলবে 
(৪,২৯,৪০,৮০,০০০ - ১৯৬,০৮,৫৩,১১৮) = ২,৩৩,৩২,২৬,৮৮২ বছর।



This video from Thanks Bharat youtube channel

সৃষ্টি রচনা

সব সম্প্রদায় এর আলাদা আলাদা ভাবনা আছে , যেটা নিয়ে তারা এগোচ্ছে। কুরান এর আলাদা মত আছে, বাইবেল এর আলাদা মত আছে, আরো অনান্য ধর্মের আলাদা মত আছে। যেখানে সংসার এর সবথেকে পুরোনো বই ঋকবেদ । যা বেদ এরই একটা ভাগ। সাধারনত এই সংসারে মুখ্যত চার টি বেদ আছে , যা ঈশ্বর সংহত -- ঋকবেদ, যজুর্বেদ, সামবেদ ও অথর্ববেদ। আর এখন তো মানুষ নিজের নিজের মত বেদ বানিয়ে নিয়েছে। সংসার এর উৎপত্তি বিষয় নিয়ে নাসা (National Aeronautics and Space Administration) যেটা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শাখা যে পাবলিক স্পেস কর্মশালা এবং এ্যারোনটিক্স এবং এয়ারোস্ফেস সংশোধনগুলির জন্য দায়ী কিন্তু মূর্খ লোক নাসার (National Aeronautics and Space Administration) কথাকেও বিশ্বাস করে না। এই সৃষ্টির উৎপত্তি নিয়ে সব সম্প্রদায় নিজের নিজের মত কে মান্যতা দেয়। যেখানে সত্যার্থ প্রকাশ এ মহর্ষি দয়ানন্দ জী জিনি একজন ঋষি ছিলেন , তিনি এই পুস্তকে উৎপত্তি থেকে এক এক দিন গণনা করেছেন। আর এটাও প্রমান করেছে এই সৃষ্টির ১৯৬,০্‌৫৩,১১৮ বছর পার হয়ে গেছে। আর এই আলাদা আলাদা সম্প্রদায় দের ভগবান তো বলে দিয়েছে আল্লাহ তো ১৪০০ বছর আগে সৃষ্টি করেছে, ঈশা মসিদ তো ২০০০ বছর আগে সৃষ্টি করেছে, কিন্তু কেও তথ্য দিয়ে প্রমান করতে পারে না, আর নাসার কথাও বিশ্বাস করে না। আর হিন্দুদের মধ্যে কিছু নাস্তিক লোক আছে যে ঈশ্বর কে মানে না আর কোন মত কেও মানে না। এবার আপনাকে বিচার করতে হবে কোন মত সত্যের উপর দাড়িয়ে আছে। আর কোন মত পশু হবার জন্য এগোচ্ছে।

যদি উপরের অঙ্ক বুঝতে অসুবিধা হয় তাহলে ভিডিও টা দেখুন সব পরিষ্কার হয়ে যাবে।



Previous
Next Post »