মনকে ছুঁয়ে যাবে এই তিনটি ছোট গল্প - Very Short Stories in Bangla Emotional

বন্ধুরা আমি আপনাদের জন্য তিনটি ইমোশনাল heart touching Very Short Stories in Bangla গল্প নিয়ে এসেছি, যদিও গল্প গুলি খুবই ছোট তবুও আমার বিশ্বাস এই গল্প গুলি আপনার মন ছুঁয়ে যাবে।

Very Short Stories in Bangla

যখন স্বপ্ন ভেঙ্গে যায়। Very Short Stories in Bangla

মনোজ এর ছোট থেকেই রাইটার হবার ইচ্ছে ছিল। কিন্তু সে তার বাবা কে বলেনি কারন সে ভয় পেত কি বলবে এই ভেবে।

মনোজ যখন ১২ ক্লাস পাস করল তখন তার বাবা তাকে বলল " মনোজ ভালভাবে ইঞ্জিনিয়ারিং এর জন্য প্রস্তুতি নাও, খুব ভাল কলেজ এ ভর্তি হতে হবে, তোমাকে অনেক বড় হতে হবে"।

সেইদিন মনোজ ভাবল আজ সাহস করে বাবাকে সত্যি কথাটা বলে দিই, বাবাকে বলে দিই আমি রাইটার হতে চাই।

মনোজ সাহস করে তার বাবার কাছে গেল এবং তার বাবাকে বলল "বাবা...আমি ইঞ্জিনিয়ারিং করতে চাইনা, আমি রাইটার হতে চায়, আমার টিচার ও বলে আমি একদিন অনেক বড় রাইটার হব"।

মনোজ এর বাবা রেগে বলল "আরে তুমি কি ব্লছ...তুমি জান একজন রাইটার এর ইনকাম কত কম, তুমি সংসার চালাবে কি করে"।

মনোজ ঃ কিন্তু বাবা আমি খুশি হব, আর আমি এটাই চাই।

মনোজ এর বাবা রেগে বলল " মনোজ আমি তর্ক করতে চাই না, যাও আর ইঞ্জিনিয়ারিং এর জন্য প্রস্তুতি নাও"। আমি তোমার বাবা , তোমার ভালোর জন্যই বলছি।


সেইদিন মনোজ এর স্বপ্ন ভেঙ্গে গেল, শুরু না করেই।

বাবা মা কোথায় আছে? Very Short Stories in Bangla

এক দম্পতীর গাড়িতে এক্সিডেন্ট হয়ে যায় যেখানে স্বামী এবং ১ বছরের বাচ্চা তো বেঁচে যায় কিন্তু স্বামীর স্ত্রী বাচ্চার মা এর মৃত্যু হয়ে যায়।

পরের দিন বাবা তার ১ বছর এর মেয়েকে নিয়ে জানালার ধারে দাড়িয়ে ছিল।

বাচ্চাটি তারা তোতলা ভাষায় তার বাবা কে বলল "বাবা, মা কোথায় আছে?

বাবা কাঁদতে কাঁদতে আকাশের দিকে ইসারা করে বলল "বাবু...ওই দেখ তোমার মা আকাশে আছে, এখন তোমার মা সেখান থেকেই প্রতিদিন তোমাকে ভালবাসবে।



বাবা, আমি শুনতে পায় না। Very Short Stories in Bangla

একজন NRI ছেলে বিদেশ থেকে ২১ বছর পর বাড়ি এসেছে, চাকরি আর নিজের ঘর বসানোর জন্য সে ভারত নিজের বাবা মায়ের কাছে ২১বছর আসেনি।

আর যখন ২১ বছর পর এল তখন তার মা অনেক বুড়ি হয়ে গেছে। এসেই সে তার মাকে জরিয়ে ধরল, আর ১৫ মিনিট ধরে সে তার মাকে বিদেশ এর গল্প শুনাতে থাকল, তার মাকে একটি কথাও বলতে দিল না। মা তার ছেলেকে দেখে শুধু হাসছিল কিছু বলছিল না।

১৫ মিনিট পর ছেলে তার মাকে বলল কেমন আছো, মা ছেলেকে আদর করতে করতে বলল " যদিও আমি এখন শুনতে পায় না কিন্তু আমার ভাগ্য মড়ার আগে তোকে দেখতে পেলাম"।

এই কথা শুনে ছেলের চোখের জল পড়তে শুরু হল।


ভবতোষ ঘোষ - একটি অমাবস্যা রাতের গল্প


আপনারা যদি কোন লেখা আমাদের ওয়েবসাইট এ পাঠাতে চান তাহলে নিচের লিংক এ ক্লিক করুন

Newest
Previous
Next Post »